1. tipsmaster247@gmail.com : aman :
  2. spapon116@gmail.com : jamunar-barta :
  3. gm.amanullah2021@gmail.com : Md Murad : Md Murad
  4. mamunshekh432@gmail.com : reporter :
  5. sawontheboss4@gmail.com : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
ক'মে যা'চ্ছে শি'ক্ষ'কদে'র বে'ত'ন। ফে'র'ত দি'তে হবে বা'ড়'তি টা'কা
রবিবার, ০৭ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৩৪ পূর্বাহ্ন

ক’মে যা’চ্ছে শি’ক্ষ’কদে’র বে’ত’ন। ফে’র’ত দি’তে হবে বা’ড়’তি টা’কা

Jamuna Desk Reporter
  • Update Time : বুধবার, ২৮ জুলাই, ২০২১
  • ২২০ Time View

বেতন বাড়ানোর উদ্দেশ্য থাকলেও নতুন স্কেলে কমে যাচ্ছে লক্ষাধিক প্রাথমিক শিক্ষকের বেতন। ১৩তম গ্রে'ডে সহকারী শিক্ষকদের বেতন নির্ধারণে তৈরি হয়েছে এই অচলাবস্থা।

প্র'শিক্ষণ না থাকা শিক্ষকদের চেয়ে বেতন কমে গেছে প্র'শিক্ষণপ্রা'প্তদের। জ্যেষ্ঠদের বেতন হয়েছে কনিষ্ঠদের চেয়েও কম। এতে ক্ষ'তিগ্রস্ত হচ্ছেন আগে যোগদানকারীরা। অথচ প্রাথমিকে প্র'শিক্ষণ বাধ্যতামূলক। এ জন্য আলাদা গ্রে'ডও পেতেন তারা। কিন্তু জাতীয় বেতন কাঠামোর ১৩তম গ্রে'ড দেওয়ার পর প্র'শিক্ষণ গ্রে'ড উঠিয়ে দেয় সরকার। এখন সবার এই গ্রে'ডে বেতন পাওয়ার কথা। এটি নিয়েই তৈরি হয়েছে জটিলতা।

এভাবে বেতন কমে যাওয়ায় ক্ষু'ব্ধ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের লক্ষাধিক শিক্ষক। জানা গেছে, দেশে ৬৫ হাজার ৬২০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন তিন লাখ ৫২ হাজার সহকারী শিক্ষক। এরমধ্যে অর্ধেকই প্র'শিক্ষণপ্রা'প্ত। গত বছরের ৯ ফেব্রুয়ারি তাদেরকে ১৩তম গ্রে'ডে বেতন দেওয়ার প্রজ্ঞাপন জারি করে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। এরপরই এই গ্রে'ডের সুবিধা নিয়ে জটিলতা দেখা দেয়।

নিয়মানুযায়ী নিম্ন ধাপে ফিক্সেশন করলে বেতন কমে যাচ্ছিল শিক্ষকদের। তবে মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের সচিবের হস্ত'ক্ষেপে উচ্চ ধাপে ফিক্সেশন করায় সে জটিলতা কে'টেছে। কিন্তু এবার দেখা দিয়েছে নতুন জটিলতা। প্র'শিক্ষণপ্রা'প্ত শিক্ষকদের বেতন কমে যাওয়ায় তৈরি হয়েছে অসন্তোষ। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদ'প্তরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্ম'দ মনসুরুল আলম এ বি'ষয়ে গণমাধ্যমকে বলেন,

‘বি'ষয়টি অর্থ মন্ত্রণালয়কে জানিয়েছি। তারা বি'ষয়টি নিয়ে কাজ করছেন। অর্থ সচিবও সমাধানের কথা বলেছেন। তবে আদেশের কাগজ আমা'র কাছে আসতে হবে। এখন বাজেটের কারণে অর্থ মন্ত্রণালয় ব্যস্ত। আশা করি, আগামী ৩০ জুনের পর তারা এ নিয়ে কাজ করবে।’ এ সমস্যা সমাধানের বি'ষয়টি সরকার বিবেচনা করছে বলেও জানান তিনি। সূত্র জানায়, অর্থ মন্ত্রণালয়ের ‘আইবাস প্লাস প্লাস’ সফটওয়্যারের মাধ্যমে বেতন ফিক্সেশন হয়।

কিন্তু এতে প্র'শিক্ষণপ্রা'প্ত ও প্র'শিক্ষণবিহীন শিক্ষকদের আলাদা গ্রে'ড নেই। অথচ প্রাথমিকে প্র'শিক্ষণবিহীন শিক্ষকেরা প্র'শিক্ষণপ্রা'প্ত শিক্ষকের চেয়ে বেতন পেয়ে থাকেন এক গ্রে'ড নিচে। শিক্ষকেরা জানিয়েছেন, আগের পে-স্কেলগু'লোয় বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট 'হতো স্কেলভিত্তিক। তখন মূল বেতন সাময়িকভাবে কমলেও ইনক্রিমেন্ট বেড়ে যাওয়ায় সাময়িক ক্ষ'তি পুষিয়ে যেত। কিন্তু বর্তমানে মূল বেতনের ৫ শতাংশ হারে ইনক্রিমেন্ট হয়। তাই গ্রে'ড ওপরে থাকলেও মূল বেতনে কেউ পেছনে পড়লে আর ক্ষ'তি পোষানোর সুযোগ থাকে না। ফলে প্র'শিক্ষণপ্রা'প্ত শিক্ষকরা ক্ষ'তিগ্রস্ত হচ্ছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category
Jamunabarta24 © All rights reserved 2021
Develper By ITSadik.Xyz