1. bappy.ador@yahoo.com : Admin : Admin admin
  2. hostctg@gmail.com : desk report :
  3. sohagkhan8933@gmail.com : editor editor : editor editor
  4. spapon116@gmail.com : jamunar-barta :
  5. mamunshekh432@gmail.com : reporter :
  6. sawontheboss4@gmail.com : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
দু’র্ব'ল'তা কা'টা'নো'র উ'পা'য়, স'ঙ্গী'নী'র সাথে ঝ’ড় তু'লু'ন বি’ছা'না'য়!
শুক্রবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:৫১ পূর্বাহ্ন

দু’র্ব’ল’তা কা’টা’নো’র উ’পা’য়, স’ঙ্গী’নী’র সাথে ঝ’ড় তু’লু’ন বি’ছা’না’য়!

Jamuna Desk Reporter
  • Update Time : বুধবার, ৪ আগস্ট, ২০২১
  • ৩৬৬ Time View

এককালে, বেডরুমের সমস্যা বেডরুমেই সীমাব'দ্ধ থাকত। আজকাল ওষুধের ব্যবসা, চি’কিৎসার অগ্রগতি এবং বিশেষজ্ঞদের গবেষণার ফলে যৌ'ন সমস্যা খোলামেলা বি'ষয়ে পরিণত হয়েছে।

ইরেকটাইল ডিসফাংশন বা উত্থানে সমস্যা বা অক্ষমতার কারণে বৈবাহিক জীবনে অশান্তি নেমে আসে যার পরিণাম 'হতে পারে বিবাহ বিচ্ছেদ। যেকোনো বয়সে ইরেক্টাইল ডিসফাংশনের চিকিৎসা করা যায় এবং
এ সমস্যায় জর্জরিত অনেক পুরুষ যারা চিকিৎসা গ্রহণ করছে তারা স্বাভাবিক ফিরে আসছে। কিন্তু আজও বহু পুরুষই বিশেষ ক্ষেত্রে কম জানে।

কারণ বিশেষ মুহুর্তে তাদের সঠিক শিক্ষার অভাব। আজও আমা'দের দেশে এর ঠিকঠাক চল নেই। ফলে হয় বড়দের মুখে শুনে, নয়তো ভুল তথ্য সম্বলিত বই পড়ে পুরুষরা গোড়ায় তৈরি করে দৈহিক চাহিদার ধারণা। এই ধারণা তৈরির সময় নারীদে'হ সম্পর্কে বহু ভুল কথা মনে গেঁথেই বেড়ে ওঠে পুরুষরা। পরে সে ভুল ভাঙে ঠিকই। কিন্তু তাতে দৈহিক শিক্ষার অভাবটা কোনওভাবেই অস্বীকার করা যায় না। তা কোন কোন ভুল ধারণা

পুরুষের মনে বাসা বেঁধে থাকে? ১. মহিলাদের শরীরে কোনও কেশ নেই। বহু পুরুষেরই প্রাথমিকভাবে এ ধারণা থাকে। হরমোনের কারণেই পুরুষ শরীর রোমশ। নারী শরীর সেভাবে রোমশ নয়। শরীরের যে অ'ঙ্গ গু'লিতে রোম দেখা যেতে পারে, সেখান থেকে তা নির্মূল করারও আধুনিক প'দ্ধতির দ্বারস্থ হন মহিলারা। ফলত ধারণা গড়ে ওঠে যে, মহিলাদের শরীরে পিউবিক হেয়ার নেই। বস্তুত তা একেবারেই অর্থহীন। উলটে, দৈ’হিক

তৃ'প্তির ক্ষেত্রে এই কেশের গু'রুত্ব আছে। ভুল ধারণার কারণে এই পুরো বি'ষয়টিতেই অন্ধকারে থাকে অধিকাংশ পুরুষ। ২. নিজেদের পছন্দ অনুযায়ী তারা মেয়েদেরও এক ছাঁচে ফেলে দেন। কিন্তু সত্যিই সকল মেয়েরা এসব পছন্দ করে না। এতে তাদের নানা অসুবিধাও হয়। সে অসুবিধার কথা পুরুষরা জানেন না বলেই, বক্ষযুগল নিয়ে ভুল ধারণা তৈরি হয়। এই ধারণার বশবর্তী হয়ে পুরুষরা এমন অনেক কাজ করে ফেলেন, যাতে

মহিলারা পরবর্তীকালে বিপাকে পড়েন। ৩. আবার অনেক পুরুষের ধারণা, প্রত্যেক মহিলারই বোধহয় যে কোনও সময় স্তনদুগ্ধ ক্ষরিত হয়। হরমোনাল চেঞ্জ, সন্তান হওয়ার পর যা যা নারী শরীরে সং'ঘটিত হয়, তা সম্পর্কে বিন্দুমাত্র ধারণা থাকে না পুরুষদের। স্তনদুগ্ধ নিয়েও কোনও জ্ঞান তাদের সামনে তুলে ধ’রা হয় না। ফলে এই অস্বাভাবিক একটা ধারণা পুরুষদের মনে বাসা বেঁধে থাকে।

৪. নারীর ঋতুকালীন যন্ত্রণা নিয়েও পুরুষের বহু ভুল ধারণা থাকে। প্রথমত, সংস্কারের কারণে এটা নিয়ে কোনও আলোচনাই হয় না পুরুষদের সামনে। দক্ষিণ ভারতে তো প্রথা অনুযায়ী, এই সময় নারীরা পুরুষদের মুখদর্শন পর্যন্ত করেন না।

ফলে এই বি'ষয়টি নিয়ে পুরুষরা রীতিমতো ধোঁয়াশায় থাকেন। অথচ পরবর্তীতে সন্তানের জন্ম দেওয়ার ক্ষেত্রে এই চক্র সম্পর্কে নারীর পাশাপাশি পুরুষেরও সম্যক ওয়াকিবহাল থাক উচিত। সেই জায়গাতে অনেকটাই পিছিয়ে থাকেন পুরুষরা।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category
Jamunabarta24 © All rights reserved 2021
Develper By ITSadik.Xyz