1. bappy.ador@yahoo.com : Admin : Admin admin
  2. hostctg@gmail.com : desk report :
  3. sohagkhan8933@gmail.com : editor editor : editor editor
  4. spapon116@gmail.com : jamunar-barta :
  5. mamunshekh432@gmail.com : reporter :
  6. sawontheboss4@gmail.com : Toufiq Hassan : Toufiq Hassan
জো*র করে দে*খানো হতো খা*রা*প ভি*ডি*ও, বা*ধ্য করা হ*তো শা*রী*রি*ক স*ম্প*র্কে
শুক্রবার, ২৫ নভেম্বর ২০২২, ০৪:২৩ অপরাহ্ন

জো*র করে দে*খানো হতো খা*রা*প ভি*ডি*ও, বা*ধ্য করা হ*তো শা*রী*রি*ক স*ম্প*র্কে

Jamuna Desk Reporter
  • Update Time : সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১০৮ Time View

এক হাজার এক দিন ব'ন্দি থাকার পর সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছেন সৌদি মানবাধিকারকর্মী লুজাইন আল হাতলুল। মুক্তি পেয়েই সৌদি কর্তৃপক্ষের বিরু'দ্ধে গু'রুতর অ'ভিযোগ এনেছেন তিনি। জানিয়েছেন ব'ন্দি থাকাকালে কি ধরনের পাশবিক নি'র্যাতন চালানো 'হত তার ওপর।

লুজাইনের অ'ভিযোগ, কারা'কর্মকর্তার স'ঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে বাধ্য করা 'হত তাকে। জিজ্ঞাসাবাদকারী কর্মকর্তারা জোর করে চুম্বন করত। জে'লের রক্ষীদের স'ঙ্গে বসিয়ে প'র্নোগ্রাফিও দেখানো 'হত। এ ছাড়া সিলিংয়ে ঝুলিয়ে মা'রধর, বিদ্যুতের শকের মতো নি'র্যাতন তো হয়েছেই।

সৌদি আরবের অতি পরিচিত নারী সমাজসেবী লুজাইন। সমাজে নারীদের অধিকার রক্ষায় সব সময়ই প্রতিবাদ আন্দোলনের সামনের সারিতে থাকেন তিনি। আন্দোলন চালিয়ে একাধিক বার গ্রে'ফতার হয়েছেন। জে'লে নি'র্মম মানসিক এবং শারীরিক নি'র্যাতনের শিকার হয়েছেন। তা সত্ত্বেও নারীদের অধিকার রক্ষার লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন।

সৌদি আরবের জেদ্দায় জন্ম তার। ব্রিটিশ কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন। ২০১৯ এবং ২০২০ সালে নোবেল শান্তি পুরস্কারের জন্য তার নাম মনোনীত হয়েছিল। ২০২০ সালে বাকলাভ হেভেন হিউম্যান রাইটস সম্মানের জন্যও তার নাম মনোনীত হয়েছে।

সৌদিতে নারীদের গাড়ি চালানোর অধিকার এনে দেয়া এবং পুরুষ অ'ভিভাবকত্ব থেকে নারীদের বের করে আনার অন্যতম কৃতিত্ব তারই। এমন একজন বহুল জনপ্রিয় সমাজকর্মীর উপর নি'র্মম নি'র্যাতন চালানো হয়েছে সৌদির জে'লে, যা নিয়ে সরব হয়েছে সারা বিশ্বই।

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) তিনি সৌদির জেল থেকে মুক্তি পেয়েছেন। সময়ের আগেই তাকে মুক্তি দেয়া হয়। কিন্তু তা সত্ত্বেও সংবাদমাধ্যম তোলপাড়। জানা গেছে, জে'লে তার উপর অমানবিক নি'র্যাতন চালিয়েছিলেন কারা'কর্মকর্তা এবং অন্যান্য রক্ষীরা।

সৌদি মানবাধিকারকর্মী লুজাইন আল হাতলুলের সংগ্রামী জীবন:২০১৪ সালের ১ ডিসেম্বর প্রথম গ্রে'ফতার হন লুজাইন। নারীদের গাড়ি চালানোয় নিষে'ধাজ্ঞার প্রতিবাদ করতে সংযুক্ত আরব আমিরশাহি থেকে সৌদি আরব যান গাড়ি চালিয়ে। তার কাছে লাইসেন্স থাকা সত্ত্বেও গ্রে'ফতার করে সৌদি পু'লিশ। ৭৩ দিন জে'লে ছিলেন তিনি।২০১৬ সালে পুরুষ অ'ভিভাবকত্বের বিরু'দ্ধে ১৪ হাজার নারী সই সংগ্রহ করে বাদশাহ সালমানের কাছে পাঠান। ফের তাকে গ্রে'ফতার করে পু'লিশ।

গ্রে'ফতারের কোনও স্পষ্ট কারণ জানাতে পারেনি পু'লিশ। তবে নারী এবং সমাজকর্মী হওয়ার জন্যই তাকে গ্রে'ফতার 'হতে হয়েছিল বলে মনে করা হয়।২০১৮ সালে সংযুক্ত আরব আমিরশাহি থেকে অ'পহরণ করা হয় লুজাইনকে। সেখান থেকে সৌদিতে নিয়ে গিয়ে গ্রে'ফতার করা হয় তাকে। তখন থেকেই জে'লেই ছিলেন তিনি। এ সব অবশ্য দমাতে পারেনি তাকে। তাকে যত বার গ্রে'ফতার করা হয়েছে, তত সামাজিক বিধিনিষে'ধের বিরু'দ্ধে সোচ্চার হয়েছেন তিনি।

আর যত সোচ্চার হয়েছেন তার মুখ বন্ধ করার প্রক্রিয়াও তত নি'র্মম হয়েছে। লুজাইনের একটি আন্দোলন বড় সাফল্য পায়। ২০১৮ সালের জুনে নারীদের গাড়ি চালানো থেকে নিষে'ধাজ্ঞা তুলে নেয় সৌদি প্রশাসন। জয় হয় নারীদের। লুজাইন তখনও জেলব'ন্দি।জে'লে থাকার সময় তাকে পরিবারের স'ঙ্গেও দেখা কিংবা কথা বলতে দেওয়া 'হত না। লুজাইনের স'ঙ্গে আরও কয়েক জন নারী সমাজকর্মী গ্রে'ফতার হয়েছিলেন। তাদের পরিবারের স'ঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়।

এটা জানতে পেরে জে'লেই অনশনে বসেন লুজাইন। ৬ দিন অনশনের পর তিনিও পরিবারের স'ঙ্গে কথা বলার অধিকার ছিন'িয়ে নেন। ভিডিও কলে পরিবারের সকলের স'ঙ্গে কথাও বলেন। অবশেষে মুক্তি পান তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category
Jamunabarta24 © All rights reserved 2021
Develper By ITSadik.Xyz